Published: November 4, 2019

সৈয়দপুরে নিরিবিলি হোটেলের ওয়ারিশদের সাথে প্রতারণার অভিযোগ


ডেস্ক রিপোর্ট-সৈয়দপুরে ঐতিহ্যবাহী নিরিবিলি হোটেলের সম্পত্তি আপন ভাইদের বঞ্চিত করে একক নামে কুক্ষিগত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে প্রদীপ প্রসাদ নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। ন্যায় বিচারের আশায় বঞ্চিত ৬ ভাই সমাজের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ, পৌর পরিষদ ও কর্তৃপক্ষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন।
সূত্র জানায়, সৈয়দপুর শহরের শহীদ ডাঃ জিকরুল হক রোডে পাকিস্তান আমলে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শ্রী ভুবেনশ্বর প্রসাদ জয়সোয়াল নিরিবিলি হোটেল নামে একটি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন। দীর্ঘদিন ধরে প্রতিষ্ঠানটি খাবার তৈরিতে সুনামের সাথে পরিচালিত হয়ে আসছে। চলতি বছরের ২৪ মে রংপুরের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় ভুবেনশ্বরের মৃত্যু হয়। মৃত্যুর পর তার ছেলেদের মধ্যে নিরিবিলি সহ সব সম্পত্তি বন্টনের কথা উঠলে ওয়ারিশন সনদের জন্য পৌরসভায় আবেদন করলে জানতে পারে আগেই প্রদীপ এককভাবে নিরিবিলির সম্পত্তি কুক্ষিগত করার জন্য ভুয়া কাগজপত্র তৈরি করেছে।
এ ব্যাপারে পৌর পরিষদ, রাজনৈতিক ও হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দের দ্বারস্থ হন বঞ্চিতরা। কয়েক দফায় বিভিন্ন স্থানে বৈঠক হলেও কোন ভাবেই প্রদীপ নিজ অবস্থান থেকে সরে আসেনি।
স্বার্থলোভী প্রদীপ প্রসাদ এর বিরুদ্ধে নাম না প্রকাশের শর্তে এক ব্যক্তি জানান, প্রদীপ বাবা ও মাকে শরীরিক ও মানষিক নির্যাতন করতো। তাদের কোনদিন খোজখবর রাখেনি। বাবার মৃত্যুর খবর জানানো হলে সে জানায় মারা গেছে লাশ তুলে ফেলে দাও। বর্তমানে তার মা মৃত্যুশয্যায়।
আরো জানাযায়, শহরের পার্শ্ববর্তী দেবীগঞ্জ এলাকায় বড় ভাই মদনের সাথে যৌথ মালিকানায় একটি ফ্যাক্টরী করে পরে সেখান থেকে বড়ভাইকে বঞ্চিত করে সে নিয়ন্ত্রন নেয়। সেখানে ফিসফিড, পোল্ট্রি ফিড ও অন্যান্য ভেজাল উপকরণ দিয়ে সয়াবিন বড়ি তৈরি করছে যা মানব দেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। বাংলাদেশসহ ভারতের নাগরিকত্ব রয়েছে প্রদীপসহ স্ত্রী সন্তানদের। বিভিন্ন এনজিও ও ব্যাংক থেকে কোটি কোটি টাকা ঋণ নিয়ে কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে তা ধামাচাপা দিয়ে রেখেছে। ভুক্তভোগী পরিবার ও সচেতন মহলের দাবি এই প্রদীপ প্রসাদের সকল অপকর্মের তদন্ত পূর্বক আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হোক।সুত্র বাংলাপ্রেস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *